রাজগঞ্জের নির্যাতিতা নাবালিকা ও তার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে সেখানেই পুলিশের বিরুদ্ধে অপদার্থতার অভিযোগ করেন। এবার পুলিশকে চুড়ি উপহার দিতে চান বিজেপি নেত্রী। জলপাইগুড়িতে এমনই বিতর্কিত মন্তব্য করলেন বিজেপি (BJP) মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল ।

রাজগঞ্জের নির্যাতিতা নাবালিকা ও তার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে জলপাইগুড়ি গিয়ে অগ্নিমিত্রা পাল পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন কিন্তু হাসপাতালে ভরতি থাকায় নাবালিকার সাথে দেখা হয়নি তাঁর। শুক্রবার সন্ধ্যায় শিলিগুড়ির কর্মসূচি শেষ করে ফের জলপাইগুড়ি চলে আসেন তিনি।

জেলা হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসাধীন নাবালিকার সঙ্গে দেখা করতে গেলে জানতে পারেন, দুপুরেই নাবালিকাকে স্থানীয় একটি হোমে নিয়ে গিয়েছে পুলিশ। ঘটনা আড়াল করতে পুলিশ লুকোচুরি খেলছে বলে অভিযোগ করেন বিজেপি নেত্রী। এরপরই পুজোয় পুলিশকে চুড়ি উপহার দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন অগ্নিমিত্রা। বলেন, “আমরা ঠিক করেছি এবার পুজোয় পুলিশকে চুড়ি উপহার দেব।

আপাতত তারা সেই চুড়ি হাতে পরে বসে থাকুক। একুশ সালে আমরা ক্ষমতায় এলে চুড়ি খুলে নেব।” পরে শিলিগুড়ি ফেরার পথে রাজগঞ্জ থানা এবং মহিলা থানার পুলিশের সাথেও কথা বলে নাবালিকার খোঁজ খবর নেন অগ্নিমিত্রা পাল।

জলপাইগুড়ি রায়গঞ্জে সন্ন্যাসী কাটা গ্রাম পঞ্চায়েত অগ্নিমিত্রা পলকে পেয়ে একাধিক অভিযোগ তুলে ধরেন গ্রামবাসীরা। ট্যাংরা পাড়া গ্রামের বাসিন্দা সোমারু মহম্মদ অভিযোগ করেন, গত ন’মাস ধরে তাঁর মেয়ে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ। মেয়েকে খুঁজে দিতে পুলিশ আট হাজার টাকা ঘুষ চেয়েছে ।

পরে রাতারাতি সেই বয়ান বদল করেন সোমারু। এরপরই অগ্নিমিত্রা পলের অভিযোগ, “নিজেদের অপকর্ম ঢাকতে থানায় তুলে নিয়ে গিয়ে সোমারু মহম্মদকে বয়ান বদল করতে বাধ্য করেছে পুলিশ।”