এই করোনা পরিস্থিতিতে বিগত কয়েকশো বছরের বিতর্কের অবসান ঘটিয়ে অবশেষে গত বুধবার উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উপস্থিত থেকে রাম মন্দিরের ভূমি পুজো করিয়ে রাম মন্দির তৈরির কাজের সূচনা করলেন। এই নিয়ে দেশে নানা বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। মোদি সরকারের সমালোচনা করে ঠিক এরকমই একটি বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন কেরালার বামপন্থী মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন।

এই রাম মন্দিরের ভূমিপুজো প্রসঙ্গে তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন “আমাদের দলের তরফে আগে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করা হয়েছে। আলাদা করে আমার আর কিছু বলার নেই। খালি এইটুকু বলবো যে দেশের করোনার আক্রান্তের সংখ্যা ১৯ লক্ষেরও বেশি। সেটা মোকাবিলা করার উপায় ভাবা উচিত। করোনা পরিস্থিতিতে বহু মানুষ আর্থিক সংকটে পড়েছেন। এমন অবস্থায় এগুলোকে প্রাধান্য দেওয়া উচিত ,বাকি বিষয়গুলো নিয়ে পরে ভাবা যাবে”।

শুধু মোদি সরকারের সমালোচনাই নয়, অনেক বিরোধী দলনেতা মোদি সরকারের ভূয়সি প্রশংসাও করেছেন।বুধবার সকালে রাম মন্দিরের ভূমি পূজার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাজিব-কন্যা প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ও তার ভাই রাহুল গান্ধীর সহ একাধিক কংগ্রেসের নেতা নেতৃবৃন্দ।

রাম মন্দির নিয়ে কংগ্রেসের অবস্থান সম্পর্কে পিনারাই বিজয়নের মতামত জানতে চাওয়া হলে বিজায়ন বলেন,”কংগ্রেসের নমনীয় অবস্থানে আমি একটুও অবাক হইনি বরং সেটাইতো প্রত্যাশিত ছিল। কংগ্রেস কোন পথে চলবে তা সবাই জানে রাজীব গান্ধী নরসিমা রাওয়ের অবস্থান ছিল কি ?ইতিহাসের সব পেয়ে যাবেন”। তবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা অনুমানও করছেন রাম মন্দির কে হাতিয়ার করে এগিয়ে যাবে পরবর্তীকালে কংগ্রেসও। বুধবার সেই ইঙ্গিতও দিলেন পিনারাই বিজয়ন।