সময় বদল ডেস্ক: এই পৃথিবীতে একসাথে নানান মানুষের বসবাস ।তার মধ্যে কেউ ভালো তার মধ্যে কেউ খারাপ মিলেমিশে আছে। একটা মানুষের মধ্যে তার ভালো গুণ যেমন থাকে খারাপ গুণ ও সমানভাবে থাকে। কিন্তু কোন মানুষ ঠিক কোন দিকে যাবে সেটা তার ওপর নির্ভর করে ।কেউ আছেন যারা নির্দ্বিধায় খারাপ কাজ করতে পারে, আবার কোন মানুষ কোন খারাপ কাজ করার আগে দশবার ভাবেন। কিন্তু আমরা কোন কোন সময় দেখি অথবা লোকমুখে শুনেছি খারাপ মানুষের সাথে কোনদিন খারাপ হয় না ভালো মানুষের সঙ্গে খারাপ টা হয়।

আমার মনে এই প্রশ্ন টা অনেকবার এসেছে যে এরকম কেন হয়? আপনার মনেও যে এই প্রশ্নটা একেবারেই আসেনি তা কিন্তু আপনি অস্বীকার করতে পারবেন না। কিন্তু এই প্রশ্নের কোনো উত্তর জানা নেই। কিন্তু এই প্রবন্ধের মাধ্যমে আমরা কিছুটা হলেও এ প্রশ্নের উত্তর পেতে পারি। অর্জুন ভগবান শ্রীকৃষ্ণকে ঠিক একই প্রশ্ন করেছিল যে ভালো মানুষের সাথে সর্বদা কেন খারাপটাই হয়?

শ্রীকৃষ্ণ অর্জুনকে এই প্রশ্নের সঠিক ব্যাখ্যা করেন। আসলে শ্রীকৃষ্ণ অর্জুন এর মাধ্যমে বিশ্বের অধিকতর মানুষকে গীতার জ্ঞান প্রদান করেছিল। মানুষ যখন কোন কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যায় তখনই নাকি এরকম জ্ঞান প্রেরিত হয় বলে শোনা যায়।

অর্জুনের এই প্রশ্নের উত্তরে শ্রীকৃষ্ণ বলেছিলেন আপাতদৃষ্টিতে হয়তো মনে হচ্ছে ভালো মানুষের সাথে খারাপ হয় কিন্তু আদতে তা নয়। কোন মানুষ যখন ঈশ্বর প্রেম চান তখন পূর্ব জন্মের সমস্ত পাপ ধুয়ে যায়। এবং তাদের সমস্ত পাপ মুছে তারা যেন শান্তির প্রার্থনা করে। শ্রীকৃষ্ণ আরো বলেন পূর্ব জন্মের অধিক পাপের ফলে মানুষ সৎ জ্ঞান লাভ করে। সে যখন তার কর্মফল ভোগ করে নেয় তখনই সে হয়ে যায় শান্তির পথের পথিক। কর্মফল মানুষকে ভোগ করতেই হয়, দেবতাদের ও এর হাত থেকে নিস্তার নেই।

এই কারণে ভগবান বিষ্ণু রাম রূপে বালি কে বধ করার পরে শ্রী কৃষ্ণ রূপে শিকারির হাতে তীর বদ্ধ হয়েছিল। এই মানুষের কর্মফল মানুষের জীবনের শাস্তি রূপে ফিরে আসে। কর্মফল ভোগ করা হয়ে গেলেই সে মুক্তির পথ লাভ করে। তাই আমাদের মনে হতে পারে ভালো মানুষের সঙ্গে কখনো কখনো খারাপ হয়, কিন্তু আদতে তারা পূর্ব জন্মের ফল ভোগ করে।